অনুসন্ধান    

Logo

 
Logo

সচেতন নাগরিক কমিটি ,সনাক (টিআইবি), কুড়িগ্রাম সম্পর্কে

টিআইবি দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনের অনুঘটক হিসেবে এমন একটি পরিবেশ সৃষ্টির চেষ্টা করছে যাতে দুর্নীতি জনগণ কর্তৃক ঘৃণিত হয় এবং রাষ্ট্র ও সমাজের সর্বস্তরে দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনের ভিত মজবুত হয়।

কেন নাগরিক সম্পৃক্ততা?

জনগণই প্রজাতন্ত্রের সকল ক্ষমতার মূল উৎস। স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন সংকট প্রতিরোধে চাপ প্রয়োগ এবং পরিবর্তনের চাহিদা সৃষ্টিতে এই জনগণই মূল চালিকা শক্তি হিসাবে কাজ করে।

টিআইবি’র স্থানীয় পর্যায়ের সকল কার্যক্রম সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) এর মাধ্যমে পরিচালিত হয়। সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) হলো টিআইবি’র অনুপ্রেরণায় স্থানীয় পর্যায়ের স্থায়ী, সৎ, দেশপ্রেমিক, উদ্যোমী, নেতৃত্বদানে সক্ষম ও স্বেচ্ছাশ্রমে ভিত্তিতে কাজ করতে আগ্রহী ব্যাক্তিদের নিয়ে গঠিত
একটি পর্যবেক্ষক ফোরাম

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) যা করে:

 স্থানীয় পর্যায়ে দুর্নীতিবিরোধী জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও চাহিদা সৃষ্টি এবং

 নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানে সেবাগ্রহীতাদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে দৃশ্যমান পরিবর্তন আনা।

২০০৪ সালে সনাক কুড়িগ্রাম গঠিত হয়। গঠনের পর থেকে সনাক কুড়িগ্রাম টিআইবি’র “মেকিং ওয়েভস”,“পরিবর্তন -ড্রাইভিং চেঞ্জ” প্রকল্পের সফল সমাপ্তির পর গত অক্টোবর ২০১৪ থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত ৫ বছর মেয়াদি “বিল্ডিং ইন্টিগ্রিটি বøকস ফর ইফেকটিভ চেঞ্জ” ( বিবেক) নামের ৫ বছর মেয়াদী প্রকল্পের সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

বরতমান সনাক

সনাক সদস্য :             ১৪ জন  (পুরুষ : ০৮  নারী : ০৬)

ইয়েস সদস্য :             ২৯ জন  (পুরুষ : ২১   নারী : ০৮)

স্বজন সদস্য :              ২৯ জন  (পুরুষ : ২৩   নারী : ০৬)

ইয়েস ফ্রেন্ডস :             ৩০ জন  (পুরুষ : ২১   নারী : ০৯)

সনাক কুড়িগ্রামের কার্যক্রম

সনাক মূলত স্বল্প পরিসরে স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং স্থানীয় সরকার সেক্টরে কাজ করে থাকে এছাড়াও বিভিন্ন দিবস পালন সহ দুর্নীতিবিরোধী ক্যাম্পেইন পরিচালনা করে থাকে।

 

বাৎসরিক বাজেট  (অক্টোবর ১৭-থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৮)= ১০,৩৪,৫৫৯ টাকা

        দাতা সংস্থা: টকধরফ (উঋওউ), ঝওউঅ, ঝউঈ ্ উঅঘওউঅ

 

স্বাস্থ্য: কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতাল

বেজলাইন জরিপ

কর্তৃপক্ষের সাথে মতবিনিময়

স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ ও সেবাগ্রহীতাদের মধ্যে মতবিনিময় সভা

হাসপাতালের  সেবা  সংক্রান্ত তথ্য প্রদান

তথ্যবোর্ড স্থাপন

প্রত্যাশিত ফলাফল

১.তথ্যের পর্যাপ্ততা নিশ্চিতকরণ

২.চিকিৎসকদের নিয়মিত উপস্থিতি:

৩.বিভিন্ন কমিটিতে নারীসহ নাগরিকদের অংশগ্রহণ

৪.বিধি বহি:র্ভূত লেনদেন হ্রাস

৫. স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সেবার মান বৃদ্ধি

 

শিক্ষা : যতিনেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

কার্যক্রম

বেজলাইন জড়িপ

শিক্ষা কর্তৃপক্ষের সাথে মতবিনিময়

এসএমসি, শিক্ষক, ইউনয়ন পরিষদ ও এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তিদের সাথে সমন্বয়সভা

সেবা  সংক্রান্ত তথ্য প্রদান

মা/ অভিভাবক সমাবেশ

এসএসসি ওরিয়েন্টেশন

একটিভ মাদার্স ফোরাম গঠন,প্রশিক্ষণ

তথ্যবোর্ড স্থাপন

স্থানীয় সরকার: কুড়িগ্রাম পৌরসভা

কার্যক্রম

বেজলাইন জরিপ ,

 কর্তৃপক্ষের সাথে মতবিনিময় সভা

জনগণের মুখোমুখি জন প্রতিনিধী  অনুষ্ঠান

সঠিক প্রার্থী বাছাই কর্মসূচি

উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

সেবা  সংক্রান্ত তথ্য উন্মুক্তকরণ

তথ্যবোর্ড ও পরামর্শ বক্স স্থাপন

প্রত্যাশিত ফলাফল

 যোগ্য নাগরিকদের স্যোসাল সেফটিনেট সেবা প্রাপ্তি

সকল নাগরিকের জন্য পর্যাপ্ত তথ্য উন্মুক্ত থাকবে

স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন কমিটিতে কমিউনিটিকে অন্তর্ভুক্তকরণ (নীতিমালা ও ম্যানুয়াল অনুযায়ী কমিটি গঠন হবে);

পরিকল্পনা প্রক্রিয়ায় নারীসহ পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠির অংশগ্রহণ থাকবে

অভিযোগ গ্রহণ ও তা নিষ্পত্তির ব্যবস্থা থাকবে

স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সেবার মান বৃদ্ধি

ইতিবাচক পরিবর্তন

 

কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতাল:

 নির্ধারিত টিকেট ফি লিখিতভাবে টাঙ্গানো হয়েছে ,

ঔষধের তালিকা টানানো হয়েছে,

প্যাথলজী সেবার ফি প্রদান ও গ্রহণের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা বেড়েছে,

পর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহ ,

অভিযোগ বক্স স্থাপন করা হয়েছে,

প্রসুতী সেবা বেড়েছে,

দালালের উপদ্রুপ  কমেছে,

পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা আগের তুলনায় বেড়েছে,

হাসপাতালের সিটিজেন চার্টারটি হালনাগাদ করে মেরামত করেছে ,ব্রেস্ট ফিডিং কর্নারটি আধুনিকায়ন করে সচল করা হয়েছে ।

হাসপাতালের সরকারী এ্যম্বুলেন্সে রংপুর যাওয়া আসার ভাড়ার পরিমান লাগিয়ে দেয়া হয়েছে

অভিযোগ দায়েরের কৌশল দৃশ্যমান করা হয়েছে

ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের হাসপাতালের ডাক্তাদের সাথে সাক্ষাতের সময়সূচি দৃশ্যমান করা হয়েছে

প্রসুতি মায়েদের জন্য আলাদা টিকেট কাউন্টার ও ঔষধ নেয়ার জায়গা করা হয়েছে

আউটডোরে নারী রোগীদের বসার জন্য জায়গা বাড়ানো হয়েছে

তথ্য প্রদান ও অভিযোগ গ্রহণের রেজিস্টার খোলা হয়েছে

জরুরী বিভাগে ডাক্তারদের ও প্রত্যেক ওয়ার্ডে নার্সদের ডিউটি রোস্টার লাগানো হয়েছে

 

যতিনের হাট প্রাথমিক বিদ্যালয়ে-

উপস্থিতি ও ভর্তির হার বৃদ্ধি পেয়েছে, এখন মায়েরা নিয়মিত সন্তানের লেখাপড়ার খোঁজ খবর নেন, এসএমসি কার্যকরী ভূমিকা রাখছে , ইউনিয়ন পরিষদের  তদারকী  বেড়েছে ।

এসএমসির তালিকা দৃশ্যমান করা হয়েছে ।

মা-সমাবেশ হচ্ছে

স্কুলে শুদ্ধাচার বক্স স্থাপন হয়েছে ।

উপবৃত্তির নতুন নীতিমালা এবং নতুনভাবে নির্ধারিত পরীক্ষার ফি সহ স্কুলের তথ্যবোর্ড হালনাগাদ করা হয়েছে ।

স্কুলে দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ও আপিল কর্মকর্তার নাম লাগানো হয়েছে

 শ্রেনী অনুযায়ী উপবৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীদের নামের তালিকা টানানো হয়েছে ্ ।

তথ্য প্রদান ও অভিযোগ গ্রহণের রেজিস্টার খোলা হয়েছে  ।

  এছাড়া-

উপজেলার সকল স্কুলে বর্ণমালায় নীতিকথা বইটি দিয়ে নীতিকথাগুলো বাচ্চাদের শেখানো হচ্ছে

 জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে ডিআইও বোর্ড স্থাপন হয়েছে ।

সনাকের কাজগুলো বিভিন্ন স্কুলে এম্পিøফাইড হচ্ছে ( ছড়িয়ে যাচ্ছে )

 

কুড়িগ্রাম পৌরসভায় ইতিবাচক পরিবর্তনসমূহ:

 পৌরসভার  লেনদেন হাতে হাতের বদলে ব্যাংক রসিদের মাধ্যমে জমা দেয়ার ব্যবস্থা হয়েছে
অনৈতিক লেনদেন কমেছে

 পৌরসভার সামনের ও ঘোষপাড়া থেকে হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ সড়ক দুটি দীর্ঘদিন পর মেরামত করা হয়েছে ।

ওয়ার্ড সভার আয়োজন করা হচ্ছে ।

স্টান্ডিং কমিটির তালিকা দৃশ্যমান করা হয়েছে ।

অভিযোগ দায়েরের কৌশল দৃশ্যমান করা হয়েছে ।

বাজেটে নারিদের জন্য আলাদা বাজেট বরাদ্দ রাখা হয়েছে ।

১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট দৃশ্যমান করা হয়েছে ।

তথ্য প্রদান ও অভিযোগ গ্রহণের রেজিস্টার খোলা হয়েছে  ।


 

প্রধান পৃষ্ঠপোষক :
এ বি এম আজাদ
জেলা প্রশাসক, কুড়িগ্রাম ।

পৃষ্ঠপোষক:
মোঃ ইমতিয়াজ হোসেন
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সাবিক ), কুড়িগ্রাম ।

ডোমেইন পরিকল্পনা ও সমন্বয়কারী :
মোঃ আব্দুল ওয়ারেছ আনসারী
সহকারী কমিশনার ( গোপনীয় ), কুড়িগ্রাম

NGO সমূহ